>
>
>

অ্যাড্রিনাল ক্যান্সার নির্ণয়

  অ্যাড্রেনাল ক্যান্সার নির্ণয়ে বিভিন্ন ধরনের পদ্ধতি রয়েছে । রোগীদের বিভিন্ন উপসর্গ অনুযায়ী সঠিক নির্ণয় পদ্ধতির মাধ্যমে এ ক্যান্সারের চিকিৎসায় ভাল ফলাফল পাওয়া সম্ভব।

  সিটি পরীক্ষা: অ্যাড্রেনাল ক্যান্সার নির্ণয়ে সিটি পরীক্ষা বিশেষ ভূমিকা পালন করে । এ পরীক্ষার মাধ্যমে টিউমারের আকার , আকৃতি , অবস্থান, আশে পাশে কোন চর্বি রয়েছে কিনা ইত্যাদি অতি সহজেই নির্ণয় করা যায়।

  ১. এড্রিনোকরটিকল কার্সিনোমা: এ ধরনের ক্যান্সার খুবই বিরল, বেশিরভাগ ৩০ থেকে ৬০ বছর বয়সী মহিলাদের এ ক্যান্সার হয় ।

  সিটি ফলাফল : 5 সেমি ব্যাস বিশিষ্ট লেব্যুলেটেড টিউমার, অনিয়মিত সীমারেখা; অস্পষ্ট প্রান্ত, পার্শ্ববর্তী অঙ্গের সঙ্গে লেগে আছে কিনা ,কম ঘনত্ব, কেন্দ্রিয় নেক্রোসিস কলা বিনষ্টি দ্রবণ ইত্যাদি নির্ণয় করা হয়। কিছু রোগীদের ক্ষতের কাছাকাছি বা তার কেন্দ্রে ক্যালসিফাইড দ্বারা ঘেরা, যা কাছাকাছি টিস্যুর ছড়িয়ে পড়া নির্দেশ করে।

অ্যাড্রেনাল ক্যান্সার

  মেটাস্ট্যাটিক অ্যাড্রেনাল ক্যান্সার: প্রাথমিক ক্যান্সারের মধ্যে সাধারণত সবচেয়ে বেশি হচ্ছে ফুসফুস ক্যান্সার,ব্রেস্ট ক্যান্সার, পাকস্থলী, কোলন, এবং অগ্ন্যাশয় ইত্যাদি। এসব ক্যান্সারের সাধারনত কোনো উপসর্গ দেখা যায়না।

  সিটি ফলাফল: টিউমারের মাপ,অনিয়মিত ভর, আকৃতি, অমসৃণতা, ঘনত্ব,রক্তপাত ইত্যাদি পরীক্ষা করা হয়। সিটি পরীক্ষায় প্রাথমিক ক্যান্সার সনাক্ত করা হলে, রোগ নির্ণয় নিশ্চিত করা যায়।

  অ্যাড্রিনাল নিউরোব্লাস্টমাঃ এটি খুব এ বিরল, মূত্র গ্র্রন্থির মজ্জায় হয়ে থাকে এবং সাস্থের জন্য অতি মাত্রায় হুমকি স্বরূপ।

  সিটি ফলাফল: অনিয়মিত শক্ত টিউমার, টিউমারের কোষ , সিস্টিক পরিবর্তন,রক্তপাত কোন রকম জতিলতা রয়েছে কিনা, ঘনত্ব, মসৃণতা ইত্যাদি নির্ণয় করা হয়। টিউমারের প্রায়ই খাম আছে। বৃহত্তর টিউমার কেন্দ্র রেখায় ধরে দ্রুত জন্মায় এবং সহজেই পার্শ্ববর্তী টিস্যুগুলোকে আক্রমণ করে।

  এমআরআই পরীক্ষা: এটি অ্যাড্রেনাল ফিয়োক্রোমোসাইটোমা এর সনাক্ত করনের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ । এমআরআই এর সাহায্যে হিস্টোলজিক্যাল বৈশিষ্ট্য নির্ণয় করা সম্ভব যা সিটি এর মাধ্যমে নির্ণয় করা যায়না।

  আলট্রাসনিক ইমেজিং

  বি আলট্রাসাউন্ড পরীক্ষা: অ্যাড্রিনাল টিউমারের স্ক্রীনিং এর জন্য এ পরীক্ষা পদ্ধতি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

  ল্যাবরেটরি পরীক্ষাঃ অ্যাড্রিনালের কার্যকারিতা পরীক্ষার মধ্যে আপিনিফ্রাইন এবং নন আপিনিফ্রাইন,প্রস্রাবের ক্যাটিকোলামিন, রক্তরস আলডেসটেরঅন,রক্তরস করটিসল, ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত।

  মডার্ণ ক্যান্সার হসপিটাল গুয়াংজৌ এর বিশেষজ্ঞরা বলেন যে, প্রাথমিক স্তরে নির্ণয় করা হলেএবং সময়মত চিকিত্সা করা হলে অ্যাড্রেনাল ক্যান্সার নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব।

scrollTop

কান্সারের ধরণ

মলাশয় ক্যান্সার
ফুসফুস কান্সার
গর্ভাশয়ের ক্যান্সার
পাকস্থলীর ক্যান্সার
বাকযন্ত্রের কান্সার
খাদ্যনালীর ক্যান্সার
পাকস্থলির ক্যান্সার
মস্তিস্কের ক্যান্সার
লিভার কান্সার
হাড়ের ক্যান্সার
স্কীন ক্যান্সার
যোনি ক্যান্সার
পিত্তকোষ
প্রোস্টেট ক্যান্সার
লিম্ফোমা
অগ্ন্যাশয় ক্যান্সার
এন্ডওমেটরিয়াল ক্যান্সার
থাইরয়েড ক্যান্সার
পিত্তনালীর ক্যান্সার
মুখের ক্যান্সার
কিডনি ক্যান্সার
একাধিক মেলোমা
জিহ্বা ক্যান্সার
মূত্রাশয় ক্যান্সার
ডিউড্রেনাল ক্যান্সার
সফট টিস্যু ক্যান্সার
অ্যাড্রেনাল ক্যান্সার
Nasopharyngeal ক্যান্সার
testicular ক্যান্সার
লিউকেমিয়া
মলদ্বারে ক্যান্সার
চোখের কান্সার

প্রযুক্তি ও যন্ত্রপাতি
জাদুকরী স্টিম সেল
গ্রীন কেমোথেরাপি-ক্যান্সার চিকিৎসায় এক অনন্য সংযোজন
পেট/সিটিঃ চিত্রের সাহায্যে কোষের বিপাক প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণের একটি প্রযুক্তি যার মাধ্যমে
টার্গেটেড জীন থেরাপিঃ ক্যান্সার নিরাময়ের একটি নতুন চিকিৎসা
ফোটন নাইফ : ত্রিমাত্রিক কনফর্মাল রঁজনরশ্মি দ্বারা চিকিত্সা ------ একাধিক ক্ষেত্র প্রযোজ্য, একত

খবর ও ঘটনা
ব্যক্তিগত প্রোফাইল
  বোয়াই অ্যান্টিক্যান্সার ক্লাব সদস্য সম্মেলন মডার্ণ ক্যান্সার হসপিটাল গুয়াংজৌ থেকে সফল ভাবে চিকিৎসা নিয়ে আসা রোগীদের সম্মেলন
চট্টগ্রামে মিনিম্যালি ইনভ্যাসিভ টার্গেটেড ক্যান্সার থেরাপি প্রযুক্তি সেমিনার
ক্যান্সার চিকিৎসায় নতুন আশা মিনিম্যালি ইনভ্যাসিভ টার্গেটেড ক্যান্সার থেরাপি প্রযুক্তি সেমিনার
চট্টগ্রামে চায়না এমডিটি বিশেষজ্ঞ দলের দ্বিতীয় সেমিনার অনুষ্ঠিত